কক্সবাজারে বৃদ্ধ দম্পতিকে পিটিয়ে জখম: বসতবাড়ি ভাঙচুর

কক্সবাজার প্রতিনিধি

বৃষ্টির পানি চলাচলকে কেন্দ্র করে কক্সবাজারের পিএমখালীর তোতকখালী এলাকায় একই পরিবারের দুইজনকে পিটিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষ লোকজন। একপ্রকার প্রভাবশালীদের ইন্ধনে বৃদ্ধ দম্পতিকে হাতও ভেঙে দিয়েছে। আহতরা হলেন, তোতকখালীর ছয়ভাইয়ের পাড়া এলাকার ফরিদ আহমদ (৭০) ও তার স্ত্রী ফরিদা বেগম (৬০)। বর্তমানে তারা কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। গত রোববার (২১ জুন) রাত ৮ টার দিকে এই বৃদ্ধ দম্পতিকে হামলা চালানো হয়েছে। ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন কক্সবাজার সদর থানা পুলিশও। বৃদ্ধ ফরিদ আহমদের মেয়ে রাজিয়া বেগম জানান, গত কয়েকদিন ধরে টানা বৃষ্টিপাত হচ্ছে। এতে পাশের বেলাল উদ্দিনের বসতবাড়ি থেকে বৃষ্টির পানি পড়ে ক্ষতি হচ্ছে ফরিদ আহমদের বাড়ি। বেলালের বাড়ির পানি ঢুকে পড়ছে ফরিদের বাড়িতে। এসময় বৃষ্টির পানি যাতে ফরিদের বাড়িতে না ঢুকে সেই ব্যবস্থা করতে বলা হয় বেলালকে। এতে বেলালের সাথে তার কথাকাটাকাটি হয়।

এর এক পর্যায়ে বেলালের বাড়ির লোকজন বৃদ্ধ ফরিদ আহমদ ও তার স্ত্রী ফরিদা বেগমকে বেদড়ক মারধর করে। মারধরের প্রতিবাদও করে এই বৃদ্ধ দম্পতি। প্রতিবাদ করায় দ্বিতীয় দফায় হামলা চালানো হয় এই বৃদ্ধদের উপর। বৃদ্ধা ফরিদা বেগম বলেন, আমরা অসহায়। পরিবারে আমরা দুইজন ছাড়া কেউ নেই। এই সুযোগে বেলাল উদ্দিন, রেজাউল হক, সাইফুল ইসলাম বাবু, বাবুল, জাহেদুল ইসলাম জিহাদ, বাইত্তা ও রাজিবসহ প্রায় ১০ থেকে ১৫ জন দুর্বৃত্ত অস্ত্র, দা, ছুরি এবং লোহার রড নিয়ে এসে পরিকল্পিতভাবে আমাদের উপর এলোপাতাড়ি হামলা চালায়। সামান্য বৃষ্টির পানি চলাচল বন্ধ করতে বলায় পরিকল্পিতভাবে প্রভাবশালীদের ইন্ধনে আমাদের উপর কয়েক দফা হামলা চালানো হয়েছে। এমনকি আমাদের উপর হামলা চালাতে অন্যগ্রাম থেকে লোকজনও ভাড়া করে নিয়ে আসে তারা। হামলায় তারা ক্লান্তহয়নি। আমাদের বসতবাড়িও ভাঙচুর করা হয়। লুট করা হয়েছে ঘরের মালামালও। ঘরের দরজা-জানালা ও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রও ভেঙে দেওয়া হয়েছে। ফরিদ আহমদের মেয়ে শওকত আরা বলেন, দুর্বৃত্তরা ইচ্ছামতো আমার পিতা-মাতাকে মারধর করেছে। তাদের শরীরে ব্যাপক আঘাত করা হয়েছে।

পুরো শরীরে জখমের চিহ্ন। এছাড়া আমার বাবার ডান হাত ও মায়ের বাম হাতও ভেঙে দিয়েছে। ঘটনার খবর পেয়ে আমরা শ^শুর বাড়ি থেকে গিয়ে আমার বৃদ্ধ মা-বাবাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে আসি রাতে। বর্তমানে তারা চিকিৎসাধীন রয়েছে। ঘটনার পরপরেই সেখানে পুলিশ পরিদর্শন করেন। কক্সবাজার সদর মডেল থানার এসআই আরিফ উল্লাহ বলেন, ডিউটি চলাকালে রোববার রাতে খবর পেয়ে সেখানে গিয়েছিলাম। বৃষ্টির পানি চলাচলকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের লোকজন আহত হয়। তারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ঘটনার বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলেই তদন্ত করে দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :