কুড়িগ্রামে দোকানঘর ভাংচুর মালামাল লুটপাট পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামে পূর্ব শত্রæতার জেরে দোকানঘর ভাংচুর মালামাল লুটপাট থানায় অভিযোগ বিচার না পেয়ে পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ দায়ের। লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী উপজেলার দাঁতভাঙ্গা বাজার সংলগ্ন মো: শাহ্জাহান আলীর পৈত্রীক সূত্রে পাওয়া ৭শতক জমিতে প্রায় ৫০ বছরধরে ভোগদখল সহ প্রতিষ্ঠান গড়ে ব্যবসা বাণিজ্যে করে আসছে। উক্ত জমিটি ঐ এলাকার মৃত মনির উদ্দিনের দুই পুত্র ছামিউল ইসলাম ও স্বপন মিলে দীর্ঘদিন ধরে জোর পূর্বক দখল নেয়ার চেষ্টা চালিয়ে আসছে। এ নিয়ে সহকারী জজ আদালতে মো: শাহ্জাহান আলী স্বর্ত্ত প্রচারনি মোকদ্দমা আনয়ন করলে দোতরফা সূত্রে ডিগ্রী প্রাপ্ত হয় । যাহার নং ২৫/০৬ এর পর উক্ত মোকদ্দমাটি সরকার জজকোর্টে আপিল দায়ের করেন যাহার নং ১০৫/১০ উক্ত আপিলটি না মঞ্জুর হইলে বিবাদী ছামিউল ইসলাম ও স্বপন মিলে উক্ত জমিটি দখল নেয়ার জন্য প্রকৃত মালিককে হুমকি ধামকী দিতে থাকে এর পর বিবাদীদের বিরুদ্ধে চিরস্থাযী মোকদ্দমা আনায়ন করলে তাতেও শাহ্জাহান আলী ডিগ্রী প্রাপ্ত হন। যাহার নং ১৭০/১০ ইং রৌমারী। এর পর শাহ্জাহানা আলী উক্ত জমিতে ঘরবাড়ী নির্মানের জন্য মালামাল জোগাড় করে নির্মান শুরু করতে গেলে গত ৩০ অক্টোবর শুক্রবার সকাল আনুমানিক ১০টার দিকে বিবাদী ছামিউল ও স্বপন গংরা প্রায় অর্ধশত বেআইনী লোকজন সহ লাঠি,দা, কুড়াল উক্ত জমিকে থাকা দোকান ঘড় ভাংচুর করিয়া নির্মান সামগ্রী সহ প্রায় দেড় লক্ষটাকার মালামাল লুট করিয়া নিয়া যায়। এতে বাঁধা প্রদান করলে বিবাদীরা মো: শাহ্জাহানা আলী সহ তার ৬ ভাইকে মারপিট করে। পরে শাহ্জাহান আলী রৌমারী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে কোন প্রতিকার না পেয়ে গত রোববার ( ১ নভেম্বর) তারিখে কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার বরাবের বিচার চেয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেন বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ মো: শাহ্জাহানা আলী পুলিশ সুপার সহ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

 

আপনার মতামত লিখুন :