খুলনায় চিকিৎসককে পিটিয়ে হত্যা বিচারের দাবিতে বিএমএ’র মানববন্ধন

খুলনা ব্যুরো

রোগীর স্বজনদের হামলায় খুলনার গল্লামারী এলাকার রাইসা ক্লিনিকের পরিচালক ডা. আব্দুর রকিব খান (৫৯) নিহত হয়েছেন। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আবু নাসের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। রাইসা ক্লিনিকে রোগীর মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এদিকে চিকিৎসককে পিটিয়ে হত্যাকারীদের শাস্তি ও পেশাগত নিরাপত্তার দাবিতে গতকাল বুধবার দুপুরে খুলনা মহানগরীর সাতরাস্তার মোড়ে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছে বিএমএ।
নিহত রকিব উদ্দিন বাগেরহাট মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান্ট টেনিং স্কুলের (ম্যাটস) অধ্যক্ষ ছিলেন। ডা. রাকিবের দুই ছেলে মেয়ে রয়েছে। মেয়ে এবার এসএসসি পাস করেছে। ছেলে প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী। জানা যায়, নগরীর মোহাম্মদ নগর এলাকার বাসিন্দা আবুল আলীর স্ত্রী শিউলী বেগমকে গত ১৪ জুন সিজারের জন্য রাইসা ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। ওই দিন বিকেলে অপারেশন হয়। বাচ্চা ও মা প্রথমে সুস্থ ছিলেন।

পরে রোগীর রক্তক্ষরণ শুরু হলে গত ১৫ জুন খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। সেখানের চিকিৎসকরাও রোগীর রক্তক্ষরণ বন্ধ করতে না পেরে ঢাকায় রেফার্ড করে। ঢাকায় নেওয়ার পথে ১৫ জুন রাতে শিউলী বেগম মারা যান। নিহত ডা. রকিব খানের ছোট ভাই মো. সাইফুল ইসলাম জানান, রাইসা ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন ওই প্রসূতির মৃত্যুকে তার স্বজনরা ভুল চিকিৎসার অভিযোগ তুলে গত সোমবার রাতে ডা. রকিবকে বেধড়ক মারধর করে। এসময় মাথায় আঘাত লাগায় তার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ শুরু হয়। গুরুতর অবস্থায় রাত ২টার দিকে তাকে খুলনা গাজী মেডিকেল ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। তিনি আরও জানান, সেখানে অবস্থার অবনতি হলে মঙ্গলবার বেলা ১১টায় তাকে আবু নাসের হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে তার মৃত্যু হয়। আবু নাসের হাসপাতালের পরিচালক ডা. বিধান চন্দ্র গোস্বামী জানান, মাথায় আঘাতের কারণে তার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়েছে। এ কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে। লাশ নিহতের বাড়িতে নেওয়া হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :