নৌ দুর্ঘটনা আগের চেয়ে কমেছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নৌ দুর্ঘটনা আগের চেয়ে কমেছে বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বুধবার ‘নৌ নিরাপত্তা সপ্তাহ ২০২১’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অনলাইনে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, নদীমাতৃক এবং সমুদ্র উপকূলীয় বাংলাদেশের স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণে নৌপরিবহনের গুরুত্ব অপরিসীম। আমাদের এই অর্জনকে সুসংহত ও টেকসই করতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, নদী বেষ্টিত বাংলাদেশে নৌ নিরাপত্তা সপ্তাহ পালনের গুরুত্ব অপরিসীম। অন্যান্য পরিবহনের তুলনায় নৌপথ অধিকতর সাশ্রয়ী এবং পরিবেশবান্ধব। দুর্ঘটনামুক্ত নৌপরিবহন ব্যবস্থা গড়ে তোলা নৌপরিবহন অধিদপ্তরের অন্যতম প্রধান দায়িত্ব। জানমালের নিরাপত্তার জন্য অধিদপ্তর থেকে বেশকিছু কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।

‘আমি স্বীকার করি এবং আমরা দেখছিও নৌ দুর্ঘটনা হ্রাস পাচ্ছে। এর মূল কারণটা মনে হয়, নৌযানের ডিজাইন, নৌপথগুলো কিংবা যা যা করণীয় সেগুলো করছেন বলে…প্রত্যক্ষ সুপারভিশন আছে বলে এগুলো কমছে। আমরা দেখতাম, প্রতি বছর যখন একটা ছুটি সেই সময়ে একটা বড় দুর্ঘটনা ঘটত। সেগুলো হ্রাস পেয়েছে, একদম চলে গেছে সেটা বলব না।’

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, সফটওয়্যারের মাধ্যমে জাহাজের ডিজিটাল নকশা নিশ্চিতকরণ, ডাক ইয়ার্ডগুলোতে আধুনিক যন্ত্র ও প্রশিক্ষিত জনবলের মাধ্যমে জাহাজ নির্মাণ নিশ্চিতকরণ, হাইড্রোলিক স্টিয়ারিংয়ের মাধ্যমে বড় বড় নৌযানের নিরাপদ চলাচল নিশ্চিতকরণ, ভিএইচএফ যন্ত্র স্থাপনের মাধ্যমে এক জাহাজের সঙ্গে অন্য জাহাজের যোগাযোগ স্থাপন, রাডার সংযোজনের মাধ্যমে অন্ধকার রাতে ও কুয়াশায় অন্যান্য নৌযান চিহ্নিতকরণ ও ইকো-সাউন্ডের মাধ্যমে নদীর গভীরতার ও নাব্যতার ধারণা পাচ্ছেন। সেজন্য আমি মনে করি, নৌপথ আগের চেয়ে সচল হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ সেক্টরের নৌযান সার্ভে ও রেজিস্ট্রেশন প্রতিবেদনসহ জাহাজের নাবিকদের সব তথ্য সম্বলিত অনলাইন ডিজিটাল ডাটাবেইজ সংরক্ষণ করা হচ্ছে। সরকারের এমন বাস্তবমুখী পদক্ষেপের কারণে নৌপরিবহন খাত দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে।

নৌপরিবহন নিশ্চিত করার জন্য সরকারি সংস্থার পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থার মালিক, শ্রমিক সংগঠনকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

আপনার মতামত লিখুন :