পাথরঘাটায় বঙ্গবন্ধুর জন্ম শত বার্ষিকী উপলক্ষে ইউএনও’র বিদ্যালয় উপহার

মো.জাফর ইকবাল,পাথরঘাটা, বরগুনা

বরগুনার পাথরঘাটায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্ম শত বার্ষীকি উপলক্ষ্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোঃ হুমায়ূন কবির উপজেলাবাসীর জন্য একটি বিদ্যালয় উপহার দিয়েছেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্ম শত বার্ষীকি উপলক্ষ্যে পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোঃ হুমায়ূন কবির যেসকল উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন তার মধ্যে প্লে থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়ার জন্য একটি বিদ্যালয় নির্মাণ। বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলাটি বলেশ্বর ও বিষখালি নদির মাঝখানে। নদিমাতৃক এ-এলাকার মানুষের জীবন জিবীকার প্রধান মাধ্যম নদি ও সাগর থেকে মাছ আহরণ করা। এখানের শিশু থেকে যুবক বৃদ্ধা সবাই নদি ও সাগরের সাথে পরিচিত। ঝড় জ্বলচ্ছ¡াসের সাথে যুদ্ধ করেই এখানের মানুষের বাঁচতে হয়। অপর দিকে এ-উপজেলায় ৭টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় ২লক্ষাধিক মানুষ বসবাস করলেও রয়েছে মানসম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অভাব। একদিকে মানসম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অভাব অপর দিকে দারিদ্রতার কারণে অনেকেই সন্তানদের লেখাপড়া করাতে অক্ষম।

এসব বিষয়ে বিবেচনা করে এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্ম শত বার্ষীকি চির স্মরনীয় রাখার লক্ষ্যে পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোঃ হুমায়ূন কবির পাথরঘাটা উপজেলা পরিষদ ভাউন্ডারির মধ্যে উপজেলা প্রশাসন বিদ্যানিকেতন নামে প্লে থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত একটি বিদ্যালয় নির্মাণ করেছেন। বিদ্যালয়টির মুল ফটকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ছবি ও জাতির জনকের জন্ম শত বার্ষীকি খোদাই করে লেখা হয়েছে। বিদ্যালয়টি ১৩ মার্চ ২০২০ তারিখ উদ্বোধন করা হলেও ইতোমধ্যে বেশ সারা পরেছে। তবে বর্তমান করোনা পরিস্থিতে বিদ্যালয়টি বন্ধ রয়েছে। সম্পূর্ন টাইলসকরা বিদ্যালয়টিতে প্রতি দুইজন শিক্ষার্থীর জন্য রয়েছে একটি করে বেঞ্চ, রয়েছে মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে পাঠদানের ব্যবস্থা, ছাত্র ছাত্রীদের জন্য রয়েছে পৃথক টয়লেট, খেলাধুলার মাঠসহ পর্যাপ্ত আলো বাতাসের ব্যবস্থা। এছাড়াও প্রতি শ্রেণী কক্ষে রয়েছে বৈদ্যুতিক পাখা ও লাইট। এ-উপজেলায় উক্ত বিদ্যালয়টির চেয়ে মানসম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দ্বিতীয় আর একটি নেই। আধুনিক ও ডিজিটালের ছোঁয়া বলতে যা বুঝায় তা উল্লেখিত বিদ্যালয়টিতে রয়েছে। বিদ্যালয়টিতে বেতন-ভাতা সুবিধাজনক হওয়াসহ গরীবদের জন্য শিথিল হওয়ায় উপজেলাবাসীদের মধ্যে আনন্দ বিরাজ করছে। উপজেলার যেসকল ব্যক্তিরা তাদের সন্তানদের লেখাপড়ার জন্য দুশ্চিন্তায় ছিলেন ইতোমধ্যে তাদের মনে স্বস্তি ফিরে এসেছে। উল্লেখ্য নির্বাহী অফিসার মোঃ হুমায়ূন কবির পাথরঘাটা উপজেলায় যোগদান করে শিক্ষার মানোন্নয়নেও নানামূখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন।

ইহার মধ্যে সরকার ঘোষিত (এসডিজি) এর অন্যতম লক্ষ্য মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করণের লক্ষ্যে ২০১৭ ও ২০১৮ অর্থ বছরে উপজেলার এসএসসি পর্যায়ে সকল শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে“উপজেলা প্রশাসন গোল্ড মেডেল প্রতিযোগিতা’। উপজেলার প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের মধ্যে বাছাই পরীক্ষায় যারা ১ম, ২য় ও ৩য় হয়েছে তাদেরকে নিয়ে প্রথমবারের মত ২০১৭ ও ২০১৮ এবং ২০১৯ সনে উপজেলা পর্যায়ে উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক প্রস্তুতকৃত প্রশ্নপত্রে একটি পরীক্ষা নিয়ে অফিসারদের সমন্বয়ে উত্তরপত্র মূল্যায়ন করে জেলা প্রশাসক, বরগুনা এর মাধ্যমে মেধা অন্বেষণ গোল্ড মেডেল প্রতিযোগিতা-২০১৭ ও ২০১৮ এবং ২০১৯ এর আয়োজন করে প্রথম স্থান অধিকারীকে গোল্ড মেডেল, দ্বিতীয় স্থান অধিকারীকে রৌপ্য মেডেল এবং তৃতীয় স্থান অধিকারীকে ব্রোঞ্জ মেডেল প্রদান করেছেন। উল্লেখ্য প্রতিযোগিতায় যারা পুরস্কার পেয়েছে তারা সবাই এসএসসি ২০১৭ ও ২০১৮ এবং ২০১৯ এ-পরীক্ষায় গোল্ডেন এপ্লাস পেয়েছে এবং ভাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লেখাপড়ার সুযোগ পেয়েছে।

এব্যাপারে বরগুনা জেলা কলেজ শিক্ষক সমিতির লেমুয়া ডা.সৈয়দ ফজলুল হক কলেজের অধ্যক্ষ মো.জিয়াউল করিম,পাথরঘাটা কলেজের সহকারী অধ্যাপক মো.জাহাঙ্গীর মল্লিক,পাথরঘাটা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও পাথরঘাটা আদর্শ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ তরিকুল ইসলাম রেজা,প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও পাথরঘাটা মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ছগির হোসেন বলেন পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ হুমায়ূন কবির একজন শিক্ষা বান্ধব অফিসার। তারা বলেন আমরা যতটুকো জানি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ হুমায়ূন কবির পদোন্নতি জনিত কারনে বদলি হয়েছেন। হয়তবা কিছুদনি আমাদের মাঝে আছেন,এই যাবার সময়ও যিনি পাথরঘাটার গরীব পরিবার গুলোর মাঝে শিক্ষার আলো ছড়ানোসহ উপজেলার প্রতিটি সেক্টরে কাজ করে একটি মডেল উপজেলা হিসাবে গড়ার প্রাণপন চেষ্টা করছেন তার প্রসংশা করার ভাষা আমাদের জানা নাই। তারা বলেন ইউএনও মোঃ হুমায়ূন কবির দেশ ও জাতির গৌরব। এ ব্যাপারে পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ হুমায়ূন কবির এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, যার জন্ম না হলে আমরা বাংলার এই ভূখন্ড পেতামনা, স্বাধীনতা পেতামনা সেই মহণ নেতা জাতির জনকের জন্ম শত বার্ষীকি চির স্মরনীয় করে রাখাসহ, এখানের শিশুদের জন্য মানসম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অভাব থাকায় উল্লেখিত উপজেলা প্রশাসন বিদ্যানিকেতন বিদ্যালয়টি নির্মাণ করেছি। তিনি বলেন আমি আশা করি যত দিন এই এই পৃথিবী থাকবে ততদিন এই বিদ্যালয় থাকবে এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু চিরো স্মরনীয় হয়ে থাকবেন। উল্লেখ্য জনসেবা, স্বাস্থ্য সেবা, আইনশৃঙ্খলা, শিক্ষা প্রভৃতি ক্যাটাগরিতে বরগুনা জেলার ৬টি উপজেলার মধ্যে পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ হুমায়ূন কবিরকে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য গত ২৩ জুন ২০১৯ ‘পাবলিক সার্ভিস ডে-২০১৯’ সম্মাননা পদক প্রদান করা হয়েছে।

 

আপনার মতামত লিখুন :