বঙ্গবন্ধুকে অপমান করা হলে প্রয়োজনে একাত্তরের মতো গর্জে উঠবে ব্যবসায়ীরা

স্টাফ রিপোর্টার

গতকাল শনিবার রাজধানীর মতিঝিলে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) নেতৃত্বে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন হক গ্রুপের চেয়ারম্যান ও দৈনিক আমাদের কণ্ঠ’র প্রকাশক সম্পাদক মোজাহারুল হক শহিদ, সালেহ আহমেদ বাবু (পরিচালক), মনির উদ্দিন আহমেদ (সহ-সভাপতি-অর্থ), খান নজরুল ইসলাম হান্নান (সাবেক পরিচালক), আব্দুল কাদের খান (সভাপতি), আবু কাওসার ভূইয়া (সাবেক পরিচালক, বিজিএপিএমইএ), আবুল কালাম রনি (পরিচালক), মিলিয়নার ওয়ারস এক্সোসরিজ লি:, আবদুস সাত্তার (পরিচালক), রুহিদাস জোয়ার্দ্দার (সাধারণ সম্পাদক), আব্দুল হালিম (যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক) এবং মোঃ ওমর ফারুক খান (ল্যাব্রটরি সহকারী)।

যার হাত ধরে দেশের অর্থনীতি, দেশের শিল্পখাতের উৎপত্তি সেই মহান ব্যক্তির অপমান সহ্য করা হবে না। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে অপমান করার ধৃষ্টতা যারা দেখিয়েছেন তাদের সাবধান করছি। এ ধরনের কোনো অপমান করা হলে প্রয়োজনে একাত্তরের মতো ব্যবসায়ীরা গর্জে উঠবে। গতকাল শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় রাজধানীর মতিঝিলে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধনে এসব কথা বলেন দেশের বিশিষ্ট ব্যবসায়ীরা। ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) নেতৃত্বে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম বলেন, বঙ্গবন্ধুর মানে বাংলাদেশ, বঙ্গবন্ধু মানে স্বাধীনতা। স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তির আগমুহূর্তে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর অপমান ব্যবসায়ীমহল মানবে না। আলেম সমাজের আড়ালে স্বাধীনতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করা হবে- এটা সহ্য করা হবে না। যারা সংবিধান ও রাষ্ট্রবিরোধী বক্তব্য দিয়েছে তাদের সংবিধান ও আইন অনুযায়ী বিচারের দাবি জানান তিনি। এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, মুজিব ভাই থেকে বঙ্গবন্ধু হয়েছিলেন যে মহান ব্যক্তিটি সেই মহান ব্যক্তির অপমান আমরা মেনে নিতে পারি না। পঁচাত্তরের ঘটনায় একশ্রেণি চেয়েছিল জাতির পিতার নাম মুছে ফেলতে, তারা সফল হয়নি। আজও ২০ দলের হয়ে আলেম সমাজের আড়ালে স্বাধীনতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করার ষড়যন্ত্র হচ্ছে। আমরা আপামর জনতাসহ ব্যবসায়ীমহল এটা মেনে নিতে পারি না।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন হক গ্রুপের চেয়ারম্যান ও দৈনিক আমাদের কন্ঠ’র প্রকাশক সম্পাদক মোজাহারুল হক শহিদ, দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পপ্রতিষ্ঠান প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আহসান খান চৌধুরী বলেন, এগিয়ে নেয়ার দেশ বাংলাদেশ। অবমাননার নাম বাংলাদেশ নয়, অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে নেয়ার নাম বাংলাদেশ। দেশের উন্নয়নে আমরা (ব্যবসায়ীরা) কাজ করছি। বাংলাদেশ এখন গতিশীল। এ দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, দেশকে আরও এগিয়ে নিতে আমাদের একত্রে কাজ করতে হবে। এমসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি নিহাদ কবির বলেন, স্বাধীনতার প্রাক্কালে জাতির পিতার অবমাননা দিয়ে একটি মহল কী বোঝাতে চান। জাতির পিতার অবমাননা করে আপনারা ব্যবসায়ীসহ দেশবাসীকে চ্যালেঞ্জ করবেন না। যার হাত ধরে শিল্পেরর উৎপত্তি তার অপমান আমরা সহ্য করব না। রিহ্যাব সভাপতি আলমগীর শামসুল আলামিন বলেন, আজ একটি মহল ব্যবসায়ীদের রাস্তায় নেমে আসতে বাধ্য করেছে। এটা ভবিষ্যতের জন্য হুঁশিয়ারি যে, বঙ্গবন্ধুর অপমান সহ্য করা হবে না। বিজিএমইএ সহ-সভাপতি এসএম মান্নান কচি বলেন, দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন যখন পূরণ হতে যাচ্ছে তখন জাতির পিতার নামে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। আমরা এ ধরনের ষড়যন্ত্র মানতে পারি না। বায়রা সভাপতি বেনজির আহমেদ বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরের প্রাক্কালে জাতির পিতার অপমান কারা করছে তাদের বিষয়ে খোঁজ নিতে হবে।

এ ধরনের মানুষ কোথায় থাকেন, কী করেন এটা নিয়ে ভাবতে হবে। আমরা এ ধরনের মানুষদের বিচার দাবি জানাই। স্টিল মিল ম্যানুফাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মানোয়ার হোসেন বলেন, আমরা বঙ্গবন্ধুর সাথে আছি, থাকব। যারা বঙ্গবন্ধুকে সম্মান করে না তারা নিজের পিতাকেও সম্মান করে না। মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম। আরও উপস্থিত ছিলেন- পোশাকশিল্প মালিক ও রফতানিকারক সমিতি বিজিএমইএ প্রতিনিধি, রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (রিহ্যাব), বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফচাকচারার্স এক্সপার্ট অ্যাসোসিয়েশন (বিকেএমইএ), মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স (এমসিসিআই), ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্টি (ডিসিসিআই), বিজিএপিএমইএ, ডাইড ইয়ার্ন এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনসহ সকল ব্যবসায়ী সংগঠন এবং শীর্ষ ব্যবসায়ীমহল।

 

আপনার মতামত লিখুন :