মির্জাগঞ্জে উপজেলা ছাত্রলীগের ভূয়া কমিটি ফেইসবুকে ভাইরাল নিয়ে তোলপাড়

মনিরুজ্জামান হাওলাদার, মির্জাগঞ্জ পটুয়াখালী

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে উপজেলা ছাত্রলীগের ভূয়া কমিটির একটি কপি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ভাইরাল নিয়ে নেতা কর্মী ওসমর্থকের মধ্যে তোলপার শুরু হয়েছে। সর্বত্র বইছে নিন্দার ঝড়। গত ৯ নভেম্বর সোমবার মধ্য রাতে ফেইসবুকের একটি ভুয়া আইডি দিয়া ভূয়া কমিটির কপিটি পোষ্ট করা হয়। মুহুর্তের মধ্যে কপিটি ভাইরাল হয়ে যায়। পটুয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের প্যাড ব্যবহার করে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সম্পাদকের স্বাক্ষর ও সীল জাল করে ভাইরাল করা হয়েছে। কপিটিতে খাইরুল আলম শাহীন সভাপতি ও মোঃ ইমরান হাওলাদার কে সাধারণ সম্পাদক দেখানো হয়েছে। এ প্রসঙ্গে পটুয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বলেন, মির্জগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি এখনও চুড়ান্ত হয়নি।এটি একটি মিথ্যা ও অপপ্রচার। অপপ্রচারে কান না দেওয়ার জন্য সকল নেতা কর্মীকে আহবান জনান এবং গুজব রটনা কারীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এ ব্যাপারে মির্জগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও উপজেলা ভাইস্-চেয়ারম্যান মোঃ জহিরুল ইসলাম জুয়েল বলেন,এটি একটি মিথ্যা, বানোয়াট ও অপপ্রচার মূলক পোষ্ট। আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই এবং প্রকৃত দোষীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানাই। ভাইরাল হওয়া কমিটির কপিটিতে ইমরান হাওলাদারের নাম থাকা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বর্তমান কমিটির ১নং সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান হাওলাদার বলেন, আমি মির্জগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি প্রার্থী। আমি পদ নিশ্চিত জেনে আমার প্রতিপক্ষ একটি স্বার্থান্বেষী ও কুচক্রী মহল আমাকে কেন্দ্র তথা জেলা নেতাকর্মীদের কাছে বিতর্কীত ও প্রশ্নবিদ্ধ করতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে এ অপপ্রচার চালাচ্ছে। আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এবং অপপ্রচার কারীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানাই। নইলে উপজেলা ছাত্রলীগ এর দাতভাঙ্গা জবাব দিতে প্রস্তুত রয়েছে। তিনি উপজেলা ছাত্রলীগের সকল পর্যায়ের নেতা কর্মী ও সমর্থকদের কে গুজবে কান না দিয়ে ঐক্যব্দ্ধ থেকে সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করার আহবান জানান।

 

আপনার মতামত লিখুন :