রামপালে ইউএনও’র নির্দেশে বন্ধ হলো কাঠ পোড়ানো চুল্লি

বাগেরহাট প্রতিনিধি :
শেষ-মেষ ইউএনও’র নির্দেশে বন্ধ হলো রামপালে সাইফুলের সেই কাঠ পুড়িয়ে কয়লা তৈরির চুল্লী। গত বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তরে অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত মোঃ সাইফুল ইসলাম ও আহম্মদ আলীকে কাঠ চুল্লি বন্ধ করার নির্দেশ প্রদান করেন। উল্লেখ্য উপজেলার উজলকুড় গ্রামের সাইফুল ও আহম্মদ আলী নামের দুই ব্যাক্তি দীর্ঘ ৫/৬ বছর ধরে অবৈধভাবে নিষিদ্ধ চুল্লি তৈরি করে কাঠ কয়লা তৈরি করে পরিবেশ ও বনজ সম্পদের ক্ষতি করে আসছিলেন। রামপাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওই ব্যক্তিদের চুল্লিতে কাঠ পোড়ানো বন্ধ করার নির্দেশ প্রদান করলে ৬/৭ মাস চুল্লি বন্ধ থাকার পর তারা আবারও কাঠ পুড়িয়ে কয়লা তৈরি শুরু করেন। অভিযোগকারী উজলকুড় গ্রামের মৃত রুহল মোল্যার পুত্র বাদশা মোল্যা ৮ মাস পূর্বে রামপাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করলে তিনি চুল্লি বন্ধের নির্দেশ দেন। এরপর আবারও তারা চুল্লিতে কাঠ পোড়ানো শুরু করেন।এ বিষয়ে দৈনিক নওয়াপাড়াসহ বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা কয়েক দফায় লেখ-লেখিও হয়েছে কোন নিয়ম কানুনের তোয়াক্কা না করে সাইফুল তার কাজ সে করছে। অবশেষে গত বৃহস্পতিবার পুনরায় ইউএনও,র দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করলে তিনি ওই অভিযোগ আমলে নিয়ে সাইফুলকে চুল্লী বন্ধো করতে নির্দেশ দেন। রামপাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অফিস সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আপনার মতামত লিখুন :