লাইসেন্সবিহীন প্রতিষ্ঠানকে জনবল সরবরাহের অনুমতি গণপূর্তের প্রকল্প পরিচালকের বিরুদ্ধে দরপত্রে অনিয়মের অভিযোগ

আমিনুল ইসলাম

গণপূর্তের প্রকল্প পরিচালক মাহাবুব হাসানের বিরুদ্ধে জনবল সরবরাহে অনিয়ম, মেয়দোত্তীর্ণ দরপত্র আহবান, দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ উঠেছে। শ্রম আইন, ২০০৬ ও শ্রমবিধিমালা, ২০১৫ মোতাবেক শ্রমিকের চাকুরি পরিচালিত হবে। থাকবে জামানত তহবিল। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের থাকতে হবে আউট সোর্সিং লাইসেন্স বাধ্যতাম‚লক। যে প্রতিষ্ঠান জনবল সরবরাহ করবে তার থাকতে হবে হাল নাগাদ লাইসেন্স । প্রত্যেক ঠিকাদার সংস্থাকে লাইসেন্স প্রাপ্তির ৬ মাসের মধ্যে নাম সম্বলিত কর্মী সামাজিক নিরাপত্তা তহবিল’নামে যে কোন তফসিলি ব্যাংকে একটি হিসাব থাকবে। সরকারের সাথে প্রত্যেক শ্রমিকের যৌথ তহবিল নামে একটি হিসেব খুলবে। এসবের কিছুই মানেনি গণপূর্তের দরপত্র আহবানকারী প্রকল্প পরিচালক তত্ত¡াবধায়ক প্রকৌশলী মাহাবুব হাসান। তিনি শ্রম মন্ত্রণালয়ের ৩ এর (ক) ধারা অমান্য করে দরপত্র আহবান করেছেন, এমন অভিযোগ করেছেন স্বয়ং ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানগুলো। অনুসন্ধানে জানাযায়, জনবল সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান রিমন এন্টার প্রাইজ সার্ভিসেস লিমিটেড শিক্ষা মন্ত্রণালয়,গণপূর্ত মন্ত্রণায়য়ের ও অধিদপ্তরের অধিনস্ত বিভিন্ন কার্যালয়সমুহে এবং ধলেশ্বরী সিকিউরিটি সার্ভিসেস প্রাইভেট লিঃ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধিনে বিভিন্ন হাসপাতালে প্রভাব বিস্তার করে অবৈধভাবে জনবল সরবরাহের কাজ হাতিয়ে নেয়।

তিনি সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা কর্মচারিদের ম্যানেজ করে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, মিডফোর্ড হাসপাতাল, জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইন্সটিটিউট, গোপালগঞ্জ সিভিল সার্জন কার্যালয়, মাদারীপুর সিভিল সার্জন কার্যালয়, গণপূর্ত কার্যালয়, মৌলভিবাজার ২৫০ সজ্জা বিশিষ্ট হাসপাতাল ও মানিকগঞ্জ সিভিল সার্জন কাযলায়ে ভুয়া রাজনৈতিক প্রভাব বিস্তার করে। আওয়ামী লীগে নব্য অনুপ্রবেশকারী সুবিধাবাদী নেতাকে ম্যানেজ করে আউট সোর্সিং এ জনবল সরবরাহের কাজ ভাগিয়ে নেয় ধলেশ্বরী সিকিউরটি এন্টার প্রাইজ । অনুরুপভাবে রিমন এন্টার প্রাইজের মালিক নাম সর্বস্ব অন্য ট্রেডের, (যাহা জনবল সরবরাহকারি লাইসেন্স নহে) মেয়াদবিহীন ট্রেড লাইসেন্স, ইনকাম ট্যাক্্র ও রাজস্ব ফাঁকি দেয়ার লক্ষ্যে (বিআইএন) নাম্বারবিহীন ভ্যাট নিবন্ধন, (সিপিটিইউ) এর নির্ধারিত পিএসএন/৫ অনুযায়ী ব্যাংক সনদ না দিয়ে, শ্রমআইনে ৩-এর (ক) ধারা মোতাবেক জনবল সরবরাহ করে। রিমন এন্টার প্রাইজের মালিক শফিকুল ইসলাম শফিক কয়েক বছর আগেও গুলিস্তানে হকারি করতেন। অন্য দিকে ধলেশ্বরী সিকিউরিটি সার্ভিসেস প্রাইভেট লি:এর ব্যাবস্থাপনা পরিচালক ২০০০ সাল থেকে ২০০৮ইং সাল পর্যন্ত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতেলে একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের সিকিউরিটি কোম্পানিতে গার্ডের দায়িত্ব পালন করেছে।

এবং ২০০৮ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত সরওয়ার্দী হাসপাতালে বেসরকারি সিকিউরিটি প্রতিষ্ঠানে সহকারি সিকিউরিটি সুপার ভাইজার হিসাবে ডিউটি করেছে আতিক আরও জানা যায়, আতিকের দায়িত্বকালিন সময়ে কতিপয় সন্ত্রাসির সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে হাসপাতেলের মালামাল চুরি ও ২শ’জনবলের এক মাসের বেতন আত্মসাৎ করে চাকরিচ্যুত হয়। তার কিছ ুদিনপর নামসর্বস্ব ভুয়া কাগজ তৈরী করে ধলেশ্বরী সিকিউরিটি সার্ভিস নামক প্রতিষ্ঠান খুলে সন্ত্রাসী কায়দায় হাতিয়ে নেয় জনবল সরবরাহের কাজ। এরপর আর পিছনে তাকাতে হয়নি তাকে। বিশ্বস্ত সূত্র জানায়, জনবল সরবরাহকারী ঠিকাদারি সংস্থার হাল নাগাদ লাইসেন্সের কপি দাখিল না করেই গণপুর্তের প্রকল্প পরিচালক তত্ত¡াবধায়ক প্রকৌশলী মাহাবুব হাসান,ঢাকা সার্কেল-১ এর পিএ আসমাউলের মাধ্যমে প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল আলম ও প্রকল্প পরিচালক তত্ত¡াবধায়ক প্রকৌশলী মাহাবুব হাসানকে ম্যানেজ করেন রিমন এন্টার প্রাইজ। প্রকৃত লাইসেন্সধারী দরদাতাদের বঞ্চিত করে রিমন এন্টার প্রাইজ ও ধলেশ্বরী সিকিউরিটি সার্ভিসকে, গণপূর্ত অধিদপ্তরের বিভিন্ন কার্যালয়ে জনবল সরবরাহের বেআইনিভাবে কাজ দেয়ার ব্যবস্থা করেছে বলে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে। গত ১০/৬/২০১৯ আউট সোর্সিং পদ্ধিতিতে জনবলের সেবামুল্য নির্ধারণ করে অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যয় নিয়ন্ত্রণ শাখা একটি পরিপত্র জারি করেন।

উক্ত পরিপত্র মোতাবেক সেবাক্রয়কারী, ঠিকাদার কর্তৃক সরবরাহকৃত জনবলের নিজ নামীয় স্ব স্ব ব্যাংক হিসাবে বেতন ভাতাদি পরিশোধ করার নির্দেশনা রয়েছে। আমাদের কন্ঠের অনুসন্ধানে জানা যায়, ধলেশ্বরী সিকিউরিটি সার্ভিস ও রিমন এন্টার প্রাইজ কর্তৃক উপরোল্লিখিত প্রতিষ্ঠান সমুহে বিল শাখার সংশ্লিষ্ট দুর্নীতিবাজ ব্যক্তির সাথে আতাত করে জনবলের বেতন কম দেয়ার লক্ষ্যে তাদের প্রতিষ্ঠানের নামে চেক গ্রহন করে। সরবরাহকৃত জনবলের নির্ধারিত বেতন ভাতাদি তাদের ব্যাংক হিসাবে পরিশোধ না করে সাদা কাগজে টিপসই নিয়ে জনপ্রতি ৪/৫ হাজার টাকা প্রতি মাসে কম প্রদান করার গুরুতর অভিযোগ রয়েছে এ দুই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে। তারা সরকার নির্ধারিত বেতনের উপর ৫% এর অধিক কমিশন গ্রহন করে। এখানেই শেষ নয়, অনুসন্ধানে জানা যায় যে চাকরিকালিন সময়ে নো ওয়ার্ক নো পে চাকরির জন্য প্রতি জন জনবল থেকে চাকরি নিয়োজিত করণের জন্য ২/৩ লাখ টাকা উৎকোষ গ্রহণ করে। সিকিউরিটি গার্ড আতিক ও হকার শফিক এভাবেই কোটি কোটি টাকার মালিক বনে গেছে। এরা সন্ত্রাসী কায়দায় সীমাহীন দুর্নীতির মাধ্যমে গণপূর্ত মন্ত্রণালয় এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দরপত্র আহবানকারি দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের সাথে গোপন আতাত করে জনবল সরবরাহের কাজ ভাগিয়ে নিচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এবিষয়ে বাংলাদেশ প্রফেশনাল আউট সোর্সিং ম্যান পাওয়ার সাপ্লায়ার্স ওনার্স এসোসিয়েশন নেতৃবৃন্দরা তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে।

তারা সংশ্লিষ্ট দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারী, রিমন এন্টারপ্রাইজ ও ধলেশ্বরী সিকিউরিটি সার্ভিসের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার জোর দাবি জানিয়েছেন। তাদের দাবী, আমরা শ্রম মন্ত্রণালয়ের ৩ এর (ক) ধারা মোতাবেক সকল শর্ত মেনে দরপত্রে অংশ গ্রহণ করেছি তারপরও কোন এক অদৃশ্য কারণে আমাদের কাজ দেয়া হচ্ছে না। এমন অভিযোগ করেন হোমল্যান্ড প্রাইভেট সাভিসেস লি:, গালফ সিকিউরিটি সাভিসেস প্রাইভেট লি:এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবিএস স্বপন। গত ৫ জুলাই ২০২০ এ ৯৪১ নং স্বারকে গালফ সিকিউরিটি সার্ভিসেস প্রাইভেট লিমিটেডকে চিঠি দেয় তত্ত¡াবধায়ক প্রকৌশলীর কার্যালয় গণপূর্ত প্রকল্প সার্কেল-১। উক্ত চিঠিতে উল্লেখ করা হয় লট নং (২,৩) এর দরপত্রের সহিত জনবলের তালিকা অনুযাযী মৌখিক পরীক্ষা নেয়া হবে। যার স্বারক নং ১৯৪৮ তারিখ ২৫ নভেম্বর ২০১৯, এ সংক্রানÍ চিঠিতে গত ১১ জুলাই ২০২০ জনবল নিয়োগে মৌখিক পরীক্ষার তারিখে জনবল সরবরাহ করেন গালফ সিকিউরিটি সার্ভিসেস লি: ধলেশ্বরী সিকিউরিটি সাভিসেস প্রাইভেট লি: ও রিমন এন্টার প্রাইজ। জানা গেছে পরীক্ষা গ্রহণ করে তত্ত¡াবধায়ক প্রকৌশলী ও প্রকল্প পরিচালকের পিএ আসমাউল। এ প্রসঙ্গে গণপূর্তের একটি সূত্র জানায়, পি এ আসমাউল কোনো আইনেই মৌখিক পরীক্ষা নেয়ার ক্ষমতা রাখেন না। এ বিষয়ে আসমাউলের সাথে কথা বললে, তিনি এ প্রতিবেদককে জানান, জনবল সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সক্ষমতা আছে কী না’ তা যাচাই করার জন্যই আমাকে দায়িত্ব দেয় প্রকল্প পরিচালক। এদিকে গালফ সিকিউরিটি সার্ভিস প্রাইভেট লিমিটেডকে জনবল সরবরাহের অনুমতি না দিয়ে দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে লাইসেন্সবিহীন প্রতিষ্ঠানকে গোপনে জনবল সরবরাহ করার অনুমতি দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে বলে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে।

 

 

 

 

আপনার মতামত লিখুন :