শ্রীমঙ্গলে সরকারি রাস্তা বন্ধ করার প্রতিবাদে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবাদ সম্মেলন

শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে সরকারি রাস্তা বন্ধ করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে মুক্তিযোদ্ধা ও এলাকাবাসী। গতকাল বুধবার(২৪ মার্চ) সাড়ে ১১টায় শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবেরর হল রুমে এসংবাদ সম্মেলন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মুক্তিযোদ্ধা মলয় দত্ত বলেন, উপজেলার সবুজবাগ রাধামাধব জিউর আখড়ার সামনের এই রাস্তা দিয়ে ৩৪টি দরিদ্র পরিবার চলাফেরা করে সরকারি ডিসির খতিয়ানের এই রাস্তা ব্যবহার করে আসছে। কিছুদিন পূর্বে এই রাস্তার পাশের সবুজবাগ রাধামাধব জিউর আখড়া কমিটির সাধারণ সম্পাদক পরিমল দাস জোড় পূর্বক সাধারণ মানুষের চলাচলের এই রাস্তাটি আখড়ার নাম করে দখল করার জন্য রাস্তাটি কিছু অংশ কেটে দেয়। তিনি জায়গাটির মালিক আখড়া কমিটি দাবী করে এই রাস্তাটি বন্ধ করে দেওয়ার পায়তারা করছেন। যুগ যুগ ধরে ব্যবহার করে আসা এই রাস্তা বন্ধ হয়ে গেলে এই এলাকার ৩৪টি পরিবারের বাড়িঘরের কোন রাস্তা থাকবে না।একটি সরকারি স্কুলের যাওয়া আসার রাস্তাও এটি। এই নিয়ে তার সাথে এলাকাবাসী একাধিকবার বসলে তিনি ৭ লাখ টাকা দাবী করেন। লিখিত বক্তব্যে আরও বলেন, এই রাস্তার জায়গা সরকারের। আমরা সব দরিদ্র মানুষ আমরা এত টাকা কোথা থেকে দেবো। আর টাকা দিলে সরকার নিবে, তিনি কেন নিবেন। মন্দিরের নাম করে পরিমল দাস টাকা হাতিয়ে নেওয়ার পায়তারা করছেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, শ্রীমঙ্গল মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা কুমুদ রঞ্জন দেব, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোয়াজ্জেম হোসেন ছমরু, সাবেক সহ কমান্ডার চিরেশ দস্তিদার ও বীর মুক্তিযোদ্ধ মোয়াজ্জেম হোসেন খাঁন সহ প্রিন্ট ও ইলেকট্টনিক মিডিয়ার সাংবাদিক। শ্রীমঙ্গল সদর ইউনিয়নর চেয়ারম্যান ভানু লাল বলেন, এনিয়ে সালিশে সমঝোতার চেষ্টা করি। কিন্তু এক পক্ষ সালিশ মানলে অন্য পক্ষে আখরা কমিটি পরিমল দাস সেটি মানেনি। তবে এই রাস্তা সরকারি বলে তিনি বলে জানান। এবিষয়ে সবুজবাগ রাধামাধব জিউর আখড়া কমিটির সাধারণ সম্পাদক পরিমল দাস মঠোফোনে রাস্তা বন্ধ করার কথা অস্বিকার করে বলেন, আমি কোন রাস্তা বন্ধ করিনি। এখনও রাস্তা বৃদ্ধমান আছে। আপনারা জানেন আমি একজন সমাজের প্রতিষ্ঠিত লোক। তারা আমার উপরে মিথ্যা সংবাদ সম্মেলন করেছে।

আপনার মতামত লিখুন :