সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ প্রবাসীর জমি যুবলীগ সভাপতির দখলে

নিজস্ব প্রতিবেদক

নারায়ণগঞ্জ সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে প্রবাসীকে মারধর ও তার ক্রয় করা জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। ভূক্তভোগী প্রবাসী মহসিন রবিবার বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন (ক্র্যাব) মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে তার ওপর হামলা ও জমি দখলের বিষয়টি তুলে ধরেন। তিনি সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নুর অত্যাচার থেকে মুক্তি পেতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আইজিপিসহ সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। লিখিত বক্তব্যে মহসীন উল্লেখ করেন, ২০০৮ সালে সোনারগাঁ উপজেলার মোগরাপাড়া এলাকায় সাড়ে ১৭ শতাংশ জমি ক্রয় করেন। দুই বছর আগে সৌদিআরব থেকে দেশে এসে জমি বালু দিয়ে ভরাট করেন। এ সময় সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু তার কাছে মোটা অংকের চাঁদা দাবী করে। দিতে অস্বীকার করলে জমি জোর করে দখলের চেষ্টা চালায়। পাশাপাশি সন্ত্রাসীদের দিয়ে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। পরে তিনি আদালতে মামলা করেন। সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আলমগীর হোসেন নোটিশ জারীর মাধ্যমে জমিতে স্থিতিবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দেন। কিন্তু সন্ত্রাসীরা জমিতে ঘর নির্মাণের চেষ্টা করে। গত ১০ ফেব্রুয়ারি জমিতে গেলে রফিকুল ইসলাম নান্নু, তার স্ত্রী বিউটি, শ্যালক আল-আমিন, বিল্লাল, রিপনসহ আরো অজ্ঞাত ৫/৬ জন মিলে ধারালো রাম দা, লোহার রড ও লাঠিসোটা নিয়ে ধাওয়া করে। প্রাণ ভয়ে তাৎক্ষণিক দৌড়ে জীবনে রক্ষা পান। বিষয়টি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মো. শহিদ বাদ ও মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ্্ নিজামকে জানান। এই নান্নু এক সময় ভারতীয় শাড়ী বিক্রেতা ও ফুটপাতের চাঁদাবাজ ছিল। বর্তমানে ক্ষমতাসীন দলের নাম ভাঙ্গিয়ে মোগড়াপাড়া ও আশপাশের এলাকায় ব্যাপক চাঁদাবাজি, মাদক ব্যাবসা, বালু সন্ত্রাস ও নদী দখল অব্যাহত রেখেছে। এ অবস্থায় নান্নু ও তার সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রেহাই পেতে সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে মো. বিল্লাল হোসেন সপন, গোলাম মোস্তফা ও হাজী সিরাজুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

 

আপনার মতামত লিখুন :