সেতু আছে রাস্তা নাই কুমারখালীতে যুগ পেড়িয়ে গেলেও শেষ হয়নি রাস্তা নির্মাণ

আব্দুর রাজ্জাক, কুষ্টিয়া

কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার বাগুলাট ইউনিয়নের কালী নদীর উপর সেতুটি নির্মাণের এক যুগ পেড়িয়ে গেলেও ব্রীজের রাস্তাটি তৈরি হয়নি আজও। তাই সুবিধা ভোগ করতে পারেনি এলাকার মানুষ। কুচ্ছিার কুমারখালী উপজেলার বাগুলাট ইউনিয়নের শালঘর মধুয়া গ্রামের বাসিন্দাদের দুর্ভোগ যেন দিনে দিনে বেড়েই চলেছে। কালী নদীর উপর নির্মিত এই সেতুট বাগুলাট ইউনিয়ন ভবন অফিসের সামনেই ।এই গ্রামের মানুষের প্রায় ৫ কিলোমিটার ঘুরে আসতে হয় ইউনিয়ন পরিষদ অফিসে সেবা নিতে। অথচ সেতুর দু’পাশে রাস্তা হলে কয়েক মিনিটের মধ্যেই নাগরিক সেবা গ্রহণ করতে পারবে। এছাড়াও কুমারখালী শহরের সাথে যোগাযোগ সময় অনেকটাই কমে যাবে। সাবেক এমপি বেগম সুলতানা তরুণ’র সময়ে সেতুটি নির্মাণ করা হয়। এর পর এই এলাকার সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ এমপি নির্বাচিত হন। তিনি এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করলেও এই রাস্তাটি নির্মাণ কাজ শেষ করতে পারেননি। প্রতিনিয়ত ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে এলাকার সাধারণ জনগনকে। ব্রীজটির রাস্তা না থাকায় বেশ কয়েক কিলোমিটার ঘুরে এসে কাঙ্খিত স্থানে পৌঁছাতে হয়। বাগুলাট ইউনিয়নের শালঘর মধুয়া গ্রামের বাসিন্দারা বর্তমান এমপি ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ’ ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। জনগনের দূর্ভোগ লাঘবে ব্রীজের রাস্তাটি দ্রুত হওয়া প্রয়োজন।

 

আপনার মতামত লিখুন :