তুর্কি ফার্স্ট লেডির বিলাসবহুল হ্যান্ডব্যাগ ঘিরে ব্যাপক সমালোচনা

প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের সঙ্গে জাপান সফরে গিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন তুরস্কের ফার্স্ট লেডি এমিনে এরদোয়ান। আর এই সমালোচনা শুরু হয়েছে তার হাতে থাকা একটি হ্যান্ডব্যাগ ঘিরে। সম্প্রতি জাপান সফরে যাওয়া তুর্কি এই ফার্স্ট লেডির হাতে ৫০ হাজার ডলার মূল্যের একটি হ্যান্ডব্যাগ দেখতে পাওয়া যায়। সমালোচনার শুরু এখান থেকেই।

রাজধানী টোকিওর ইমপেরিয়াল প্রাসাদে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের পাশে এমিনে এরদোয়ানের তোলা একটি ছবি ঘিরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিতর্ক শুরু হয়। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ব্যবহারকারীরা দ্রুত ওই হ্যান্ডব্যাগের বাজারদর খুঁজে বের করেন। তারা জানান, তুর্কি ফার্স্ট লেডির হাতে শোভা পাওয়া ওই হ্যান্ডব্যাগের মূল্য ৫০ হাজার মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি প্রায় ৪২ লাখ ২৭ হাজার ৯৭৫ টাকা)।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম আহভাল নিউজ বলছে, দেশে যখন অর্থনৈতিক সঙ্কট থেকে বাঁচার লড়াই চলছে; তখন ফার্স্ট লেডির এই ব্যাগের মূল্য তুরস্কের ১১ জন মানুষের প্রায় এক বছরের পারিশ্রমিকের সমান।

অতীতেও বিলাসবহুল জীবনযাপনের জন্য তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানও ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন। সমালোচকদের দাবি, তাদের ধার্মিক এবং বিনয়ী স্বভাবের সঙ্গে বিলাসবহুল এই জীবনযাপন পরস্পর বিপরীতমুখী।

এরদোয়ানের শাসনামলে এক হাজার ১৫০ কক্ষবিশিষ্ট বিলাসবহুল প্রেসিডেন্ট প্রাসাদ নির্মাণের কথা উল্লেখ করে দেশটির সংবাদপত্র কামহুরিয়াত বলছে, নাগরিকরা দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির সঙ্গে রীতিমতো লড়াই করলেও প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের বাসিন্দারা তাদের বিলাসবহুল জীবনযাপন থেকে মুখ ফেরাতে পারেননি।

গত বছরের আগস্ট থেকে তুরস্কের মুদ্রা ব্যাপক সঙ্কটের মধ্যে রয়েছে। অর্থনৈতিক সঙ্কট থেকে বেরিয়ে আসতে নানা ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হলেও এখনও ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। দেশটিতে বেকারত্বের হারের রেকর্ড পর্যায়ে পৌঁছেছে বলে স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন :