ডেঙ্গু মশা নিধনে চসিকের ওষুধ শতভাগ কার্যকর দাবি মেয়রের

ডেঙ্গু রোগের জীবাণুবাহী এডিশ মশা নিধনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) ব্যবহৃত ওষুধ শতভাগ কার্যকর বলে দাবি করেছেন চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নগরের অপর্ণা চরণ সিটি করপোরেশন উচ্চ বিদ্যালয়ে এডিস নির্মূলে বিশেষ ক্রাশ প্রোগ্রাম উদ্বোধনকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ দাবি করেন।

নাছির উদ্দিন বলেন, ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধে এর জীবাণূবাহী এডিশ মশা নিধনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন যে ওষুধ ব্যবহার করছে, তা শতভাগ কার্যকর। এর কার্যকারিতা নিয়ে কেউ প্রশ্ন তুলতে পারবে না। ভারত থেকে আমদানি করা ‘এড আলর্টি সাইট’ ওষুধটি কার্যকর হওয়ার প্রয়োজনীয় ডাটা ও তথ্য উপাত্ত আমাদের রয়েছে। যদি কেউ চান তিনি এ ওষুধের কার্য্কারিতা পরীক্ষা করে দেখতে পারবেন।

তিনি আরও বলেন, যেদিন থেকে ঢাকায় ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে সেদিন থেকে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ভারত থেকে সংগ্রহ করা ওষুধ ছিটানোর পাশাপাশি জনগণকে সচেতনে নানা উদ্যোগ নিয়েছি। আমরা দেশে প্রথম বিনামূল্যে ডেঙ্গু পরীক্ষা চালু করেছি। আজ সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও বাসাবাড়ির মালিকদের নিয়ে বিশেষ কর্মসূচি নিয়েছি। ওয়ান টাইম কাপ, প্লেট, পাত্রে পানি যেন জমতে না পারে সে ব্যাপারে সচেতন করছি।

প্রসঙ্গত, গত জুলাইয়ে রাজধানী ঢাকায় ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পর ঢাকার উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মশা মারতে যে ওষুধ তারা ব্যবহার করছে তা অকার্যকর। এমনকি আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশের (আইসিডিডিআর,বি) গবেষণায়ও সেটি প্রমাণিত হয়।

CTG-mayor-2

পরে দেশে ব্যবহৃত ওষুধ কার্যকর নয় বিবেচনায় ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনকে দিয়ে দ্রুত নতুন ওষুধ আমদানিতে সব রকম সহযোগিতা করতে সরকারকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

সর্বশেষ গতকাল রাজধানীতে এক পরিচ্ছন্নতা অভিযান কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, দুই চারদিনের মধ্যে মশক নিধনের কার্যকর ওষুধ ঢাকায় পৌঁছাবে। তাই এই সময়ের মধ্যে দায় মেটানোর জন্য অকার্যকর ওষুধ ছিটানোর কোনো প্রয়োজন নেই।

এদিকে জাগো নিউজের অনুসন্ধানে জানা গেছে, রাজধানী ঢাকাসহ চট্টগ্রামে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পর চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নতুন করে কোনো মশা নিধনকারী ওষুধ আমদানি করেনি।

সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ হাসান রেজা জাগো নিউজকে বলেন, আমরা মশা নিধনে মূলত দুটি ওষুধ প্রয়োগ করছি। দুটি ওষুধই ভারত থেকে আমদানি করা। ডেঙ্গুর প্রকোপ শুরুর পর নতুন করে কোনো ওষুধ আনা হয়নি। এখন আমরা এডাল্ট মশা নিধনে ফগার মেশিনের মাধ্যমে ‘এড আলর্টি সাইট’ ওষুধ ধোয়ার সাহায্যে বাতাসে স্প্রে করছি। এছাড়া মশার বংশ বিস্তারে ‘লার্বি সাইট’ ওষুধ ছিটাচ্ছি। এর মাধ্যমে মশার প্রজনন স্থানগুলো ধ্বংস করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন :