ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের মুক্তি চায় জেএসডি

ব্যারিস্টার মইনুলহোসেনের মুক্তির দাবি জানিয়েছে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি। বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) দলটির সভাপতি আ স ম আবদুর রব ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন এক বিবৃতিতে এ দাবি জানান।

বিবৃতিতে বলা হয়, দেশে মৌলিক মানবাধিকার ও বিচার বিভাগের স্বাধীনতা থাকলে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে বিনা কারণে পুনরায় কারাগারে যেতে হতো না।

নেতারা বলেন, ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে আনীত ধারাসমূহ জামিনযোগ্য এবং তিনি জামিনেই ছিলেন। জামিনে থাকা অবস্থায় তিনি নিয়মিত হাজিরা দিয়েছেন, জামিনের শর্ত ভঙ্গ হয় এমন কোনো কাজ করেননি। এরপরও তাকে কারাগারে পাঠানোর ব্যবস্থা করা থেকে প্রমাণ হয় বিচার বিভাগের ওপর অদৃশ্য হস্তক্ষেপ চলছে।

সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টির দায়ের করা মানহানি মামলায় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) ঢাকা মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেনের আদালতে তিনি আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে শুনানি শেষে জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়।

গত বছরের ২১ অক্টোবর সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে এ মামলা করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। এরপর তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে তিনি উচ্চ আদালত থেকে জামিন নেন।

এর আগে ১৬ অক্টোবর একাত্তর টেলিভিশনের টক শো ‘একাত্তরের জার্নাল’-এ ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি প্রশ্ন করেন, ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে আপনি যে হিসেবে উপস্থিত থাকেন- আপনি বলেছেন আপনি নাগরিক হিসেবে উপস্থিত থাকেন। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই বলছেন, আপনি জামায়াতের প্রতিনিধি হয়ে সেখানে উপস্থিত থাকেন।’

মাসুদা ভাট্টির এমন প্রশ্নে রেগে গিয়ে মইনুল হোসেন বলেন, ‘আপনার দুঃসাহসের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ দিচ্ছি। আপনি চরিত্রহীন বলে আমি মনে করতে চাই। আমার সঙ্গে জামায়াতের কানেকশনের কোনো প্রশ্নই নেই। আপনি যে প্রশ্ন করেছেন তা আমার জন্য অত্যন্ত বিব্রতকর।’

আপনার মতামত লিখুন :