সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা-তাড়াশ সড়ক সংস্কার না হওয়ায় চলাচলের অযোগ্য

রেজাউল করিম খান, সিরাজগঞ্জ
সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা-তাড়াশ সড়কটি দীর্ঘদিন যাবত সংস্কার না হওয়ায় চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। সড়কের বেশিরভাগ অংশে কার্পেটিং উঠে গিয়ে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় খানা-খন্দের গর্ত। এ সড়কে চলাচলাকারী বিভিন্ন যানবাহন চালক, যাত্রী ও পথচারীরা চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। সরেজমিনে দেখা যায়, জন গুরুত্বপুর্ণ সলঙ্গা টু তাড়াশ সড়কটির বেশিরভাগ স্থানে কার্পেটিং উঠে গিয়ে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় খানা-খন্দের। বৃষ্টিতে সড়কে সৃষ্ট গর্তে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে থাকে।

প্রায় এক যুগ পার হলেও এ রাস্তার মেরামত না হওয়ায় রেইনকার্ট ও মাটি ধসে সড়কের ঢাল একেবারেই নেই। বিভিন্ন অগাছা জন্ম হয়ে ভরে গেছে। ফলে রাস্তার ধারে এক বিদঘুটে পরিবেশ তৈরি হয়েছে। সড়কে চলাচলাকারী বিভিন্ন যানবাহন চালক, যাত্রী ও পথচারীদেরকে চরম দুর্ভোগ ও বিড়ম্বনায় পড়তে হয় । দুর্ভোগের পাশাপাশি প্রতিদিন অনেকটা ঝুঁকি নিয়েই এ সড়কে চলছে যানবাহন। মাঝে মধ্যেই যাত্রী ও মালামাল বহনকারী যানবাহন উল্টে গিয়ে ঘটছে দুর্ঘটনা।

সপ্তাহের সোমবার ও বৃহস্পতিবার এ দু’দিন সলঙ্গায় বিশাল হাট বসে। এছাড়া সলঙ্গা ও তাড়াশে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থাকায় এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রী ও পার্শ্ববর্তী এলাকার হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে থাকেন। কিন্তু দীর্ঘ দিনেও জনগুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি সংস্কার করা হয়নি। প্রয়োজনের তাগিদে বাধ্য হয়েই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন চলাচল করছেন নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ।

এ সড়কে চলাচলকারী ভ্যানচালক আমসারা গ্রামের আমির হোসেন ও সলঙ্গা গ্রামের আব্দুল মজিদ জানান, এ সড়কটি প্রায় দশ বছর আগে মেরামত করা হয়েছিল। মেরামত করার পর কিছুদিন না যেতেই অনেক জায়গায় কার্পেটিং উঠে গিয়ে গর্তের সৃষ্টি হতে থাকে। পুরো সড়কের কার্পেটিং উঠে গেছে। অতিরিক্ত যানবাহন চলাচলে খোয়া উঠে গিয়ে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এখন এই সড়কের অধিকাংশ স্থানেই ভাঙাচোরা আর খানাখন্দে ভরা। মাঝে মধ্যেই আমাদের ভ্যান উল্টে গিয়ে যাত্রী সহ ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে।

এলজিইডি’র সিরাজগঞ্জ নিব্র্াহী প্রকৌশলী কার্যালয়ের সিনিয়র প্রকৌশলী বদরুদ্দোজা বলেন- এ রাস্তাটি টেন্ডারের প্রক্রিয়াধীন সলঙ্গা-তাড়াশ সড়কটি অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি সড়ক। দীর্ঘদিন পর সড়কটি সংস্কারের জন্য টেন্ডার প্রক্রিয়ায় রয়েছে। টেন্ডার প্রক্রিয়া শেষ হলে আমরা দ্রুত কাজ বাস্তবায়নে যেতে পারবো। উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুজ্জামান জানান, সলঙ্গা থানা সদর থেকে তাড়াশ সড়কটি সংস্কারের অভাবে কিছুটা জনদুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে। সড়কটি মনিটরিং করা হয়েছে। সংস্কারের জন্য টেন্ডার প্রক্রিয়াধীন আছে। এটা শেষ হলে যতদ্রুত সম্ভব সড়কটির সংস্কার কাজ সম্পূর্ন করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :