কুলাউড়ায় রশি দিয়ে বেঁধে কিশোরকে নির্মমভাবে হত্যা: আটক ৩

মশাহিদ আহমদ,মৌলভীবাজার
কুলাউড়া উপজেলার কর্মধা ইউনিয়নের পুর্ব ফটিগুলী গ্রামে পূর্ব শত্রুতার জেরে সুলেমান (১৫) নামে এক কিশোরকে রশি দিয়ে বেঁধে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে একই পরিবারের ৩ জনকে আটক করেছে কুলাউড়া থানা পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন- পার্শ্ববর্তী বাড়ীর আনু মিয়া (৪৫), তার স্ত্রী পিয়ারা বেগম (৪০) ও মেয়ে আসলিমা বেগম (১৮)। এ ঘটনায় নিহত কিশোরের বড় ভাই ৫ জনের নামে কুলাউড়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন গত ৮ সেপ্টেম্বর। পুলিশ ও স্থানীয়সূত্রে জানা যায়- উপজেলার কর্মধা ইউনিয়নের পুর্বফটিগুলি গ্রামের মৃত বাজিদ আলীর পুত্র সুলেমান গত ৬ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সকালে নিজ বাড়ির উত্তর পাশে একটা বটগাছের নিচে বসা ছিলো। এ সময় মন্ডল নামে এক শিশু পৃর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী সুলেমানকে ডেকে নিয়ে যায় আনু মিয়ার বাড়িতে। এ সময় সেখানে তাদের ঘরের ভেতরে রশি দিয়ে বেঁধে নির্মমভাবে মারপিট করা হয়।

এসময় তার চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এলে উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হন। এক পর্যায়ে ঘাতক রেদওয়ান, আনু মিয়া, তার স্ত্রী পিয়ারা বেগম, ও মেয়ে আসলিমা বেগম মিলে স্থানীয় এলাকাবাসীকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে দাওয়া করেন। মুহুর্তে সংবাদটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার মাসুক মিয়াসহ অন্যান্য লোকজন সুলেমানকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। পরদিন শনিবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় সুলেমান মারা যায়। নিহত কিশোরের পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ ইয়ারদৌস হাসান ঘঠনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন- ঘঠনার সাথে জড়িত ৩ আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :