গাইবান্ধা বোয়ালী ইউনিয়নের দুলু নামে এক ব্যক্তির মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধার: সদর থানায় মামলা

শহিদুল ইসলাম খোকন,গাইবান্ধা
গাইবান্ধা সদর থানার বোয়ালী ইউনিয়ন এর পশ্চিম পিয়ারাপুর থেকে দুলু মিয়া নামের এক ব্যক্তির মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধার করেছে গাইবান্ধা সদর থানা পুলিশ। থানা সুত্রে জানা যায়, নিহত দুলু মিয়া পিয়ারাপুর গ্রামের কেরামতুল্লার ছোট ছেলে, সে পেশায় একজন কাঁচামাল ব্যবসায়ী।

নিহত দুলু মিয়ার স্ত্রী হেলেনা বেগম দৈনিক আমাদের কন্ঠে জানায়, ‘‘আমার স্বামী গতকাল রাত আনুমানিক ৯টার সময় মাছ মারার জন্য টর্চলাইট নিয়ে দারকি পাতানোর জন্য বাড়ীর সামনে পাথারের মধ্যে যায়। আমি ছেলে মেয়ে সহ খাওয়া দাওয়া করে ঘুমিয়ে পড়ি। হঠাৎ ঘুম থেকে জেগে দেখি রাত ১১ টা বাজে আর আমার স্বামী তখনো বাসায় ফিরেনি।

তারপর আমি আর আমার ছেলে সহ অনেক খোজা খুজি করে আমার স্বামীর খোজ পাইনি। সকাল ৬টার সময় আমার ছেলে ধানের জমি সংলগ্ন আর্মির লিচু বাগানের পার্শ্বে জমির আইলে আমার স্বামীর মস্তকবিহীন লাশ পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার করে উঠে। তার চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন ছুটে আসে এবং থানা পুলিশ কে খবর দেয়। পুলিশ এসে লাশ ময়না তদন্তের জন্য নিয়ে যায়। হেলেনা বেগমের তথ্যমতে জমি-জমা সংক্রান্ত দ্বন্দ্বে তাকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে।

এদিকে এলাকার একাধিক ব্যক্তি সাথে কথা বললে জানা গেছে, স্ত্রীর পরকীয় সংক্রান্ত কারণে তিনি খুন হয়ে থাকতে পারে। দুলু মিয়া প্রবাসে থাকাকালীন সময় থেকে তার স্ত্রী পরকীয়া জড়িয়ে পরেন। বছর খানেক আগে পরকীয়ার কারণে তার স্ত্রী হেলেনা গলায় ফাঁস দিয়েছিল।

কয়েকদিন আগেও তার বাড়ীতে পরকীয়া সংক্রান্ত ঘটনায় শালিস বৈঠক হয়েছে। এলাকার অনেকেই দাবী তার স্ত্রীর মুঠো ফোন দুইটি জব্দ করলে হত্যা কান্ডের মূল রহস্য উদঘাটন হবে। এ ব্যাপারে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ শাহরিয়ার সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন থানায় ১৩/২০১৯ একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :