রিফাত হত্যা মামলার আরো এক আসামীর আদালতে আত্মসমর্পণ

মো:আসাদুজ্জামান,বরগুনা
বরগুনার বহুল আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত পলাতক আরো এক অপ্রাপ্তবয়স্ক আসামী আদালতে স্বেচ্ছায় আত্মসমর্পণ করেছেন। সোমবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে বরগুনার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণ করার পরে অভিযুক্ত অপ্রাপ্তবয়স্ক ১০ নম্বর আসামি মো. সাইয়েদ মারুফ বিল্লাহ ওরফে মহিব্বুল্লাহকে (১৭) শিশু আদালতে পাঠানো হয়।

বেলা ১ টার দিকে শিশু আদালতের বিচার মো. হাফিজুর রহমান তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে যশোর কিশোর সংশোধন কেন্দ্রে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। এরআগে রবিবার প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ৩ নম্বর অভিযুক্ত আসামী মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত, অপ্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ২ নম্বর অভিযুক্ত রাকিবুল হাসান রিফাত হাওলাদার (১৫), তিন নম্বর অভিযুক্ত আবু আবদুল্লাহ রায়হান (১৬) এবং ১২ নম্বর অভিযুক্ত প্রিন্স মোল্লা (১৫) আদালতে আত্মসমর্পণ করেছিলেন।

তাদের মধ্যে মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাতকে বরগুনা জেলা কারাগার এবং অপ্রাপ্তবয়স্ক ৩ জনকে যশোর কিশোর সংশোধন কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। এর আগে গত ২ অক্টোবর অপ্রাপ্তবয়স্ক আসামী মারুফ মল্লিক আদালতে আত্মসমর্পণ করে। এখন পর্যন্ত রিফাত হত্যা মামলার ১৫ জন আসামীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে এবং ৬ জন আসামী স্বেচ্ছায় আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন। যাদের মধ্যে আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি ও আরিয়ান শ্রাবন জামিনে আছেন।

গত ৩ অক্টোবর বরগুনার সিনিয়র জুডিসিয়াল আদালতের বিচারক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম গাজী এ মামলার পলাতক আট অভিযুক্তের মালামাল ক্রোকের নির্দেশ দেন। এ মামলার তিন অভিযুক্ত আসামী এখনও পলাতক রয়েছেন। এরা হলেন প্রাপ্তবয়স্ক অভিযুক্তদের নিয়ে গঠিত অভিযোগপত্রের ৬ নম্বর অভিযুক্ত মো. মুসা (২২), অপ্রাপ্তবয়স্ক অভিযুক্তদের নিয়ে গঠিত অভিযোগপত্রের ৬ নম্বর অভিযুক্ত মো. নাইম (১৭) এবং ৯ নম্বর অভিযুক্ত মো. রাকিবুল হাসান নিয়ামত (১৫)।

গত ২৬ জুন সকালে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে আহত করা হয়। ওইদিন বিকাল চারটার দিকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। এ ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ ১২ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করলেও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন কবির ২৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন

আপনার মতামত লিখুন :